Sunday, June 10, 2012

আঁধার বিলাস [ Ghost Stories - 784]




আঁধার বিলাস=- (পর্ব- ৩) 
লেখক:ইউনুস খান
 
লোকটা কিছুক্ষন চোখ বন্ধ করেবললো......"এ খন ১২টা বাজে....তোমরা প্রস্তুত?"
 
রাহাতের ঘাঁড়ের রোমগুলো খাড়া হয়ে গেল। লোকটা কিসের প্রস্তুতির কথা বললো?
 
সে নাকে কিসের যেন গন্ধ পেল। খুব বাজে গন্ধ। গন্ধটাথেকে
 থেকে আসছে। রাহাত বার বার জামিলের দৃষ্টি আকর্ষন করতে লাগলো। কিন্তু সে অবাকহয়ে দেখলো জামিল খালেকুজ্জামানের দিকেই তাকিয়ে আছে। 
খালেকুজ্জামান আবার বলতে লাগলো........"আ মি অজ্ঞান অবস্থায় তিনদিন ছিলাম। যেদিন জ্ঞান ফিরল সেদিন নিজেকে আবিষ্কার করলাম জনতার মাঝে, শয়ে শয়ে মানুষ আমার চারপাশে দাঁড়িয়ে আমার দিকে ঝুঁকে আছে। সবাই অর্ধ উলঙ্গ। কালো কালো বিদঘুটে চেহারার মানুষ। । আমাকে চোখমেলতে দেখে লাঠি হাতে একজন মানুষ আমার দিকে এগিয়ে আসল।সে ছিলো ঐ গ্রামের নেতা। সেআমার বুকে লাঠি ঠেকিয়ে বললো,"আইডা কোথায়?" আমি কোনকথা বলতে পারলামনা...শুধু ইশারা দিয়ে বললাম যে আমি কিছুই জানিনা আমার কি হয়েছে। লোকটাআরেকটা লোককে ইশারা দিয়ে কি যেন বললো.......খেয়া ল করে দেখলাম অনেক মানুষ মিলে এক জায়গায় কাঠ জড়ো করছে....তার মাঝে দুটো খুঁটি আড়াআড়ি করে ক্রসকরে লাগানো......জেস াস ক্রাইস্টের ক্রসের মত। মুহুর্তের মধ্যে আমার মনে পড়ে গেল যে এরা আমাকে পোড়ানোর ব্যবস্থা করছে। আমার পাদুটো টলে গেল। কোনমতেবসে মনে মনে সৃষ্টিকর্তাকে ডাকতে লাগলাম....হঠাৎ খেয়াল করলাম সৃষ্টিকর্তার পরিবর্তে আমিডাকছি "আইডা, আইডা, আইডা".........ল োকগুলা আগুনজ্বালালো... .তারমাঝে কিছু লাল রং ছিটিয়ে দিল....তারপর আমার মাথায় একরকম হলদে দুর্গন্ধময় তরল ঢেলে দিল....আমাকে চাবুক দিয়েপেটাতে লাগলো....তিনদিন নাখাওয়া মানুষকে এভাবে পেটালে সে বেঁচে থাকার কথানা। কিন্তু আমি বেঁচে গেলাম। আর যে বাঁচালো সে হলো ডেভিড......."
 
জামিল হাঁ করে শুনতে থাকলো.....তার চোখ দুটো যেন কোটর ছেড়ে বের হয়ে আসছে। সেমূর্তির মত বললো...."কীভাবে ?"
 
রাহাত একটা কুকুরের কান্নার শব্দ শুনতে পাচ্ছে। কুকুরের কান্না সে আগেও বহুবার শুনেছে কিন্তু আজকে সে এই শব্দটাকে ভয় পাচ্ছে। সে মনে মনে নিজেকে বলছে...."রাহাত তুমি ভয় পেওনা। সিচুয়েশনের কারনে তুমি ভীত।"
 
লোকটা চট করে রাহাতের দিকে তাকিয়ে হাসলো তারপর বলতে লাগলো.."আমাকে যখন সবাই মারছে তখন এক লোক হঠাৎ দৌড়েএসে আমার নিশ্চল দেহের উপর শুয়ে পড়লো।এই আকস্মিক ঘটনায় গ্রামবাসী কিছুটার জন্য চমকে গেল। তারালোকটাকে দাঁড় করালো.....আমি আধচোখ মেলে দেখলাম.....ডেভি ড।"
 
সেদিনের জন্য আমরা বেঁচে গেলাম....ঐদিন আর আমাদেরকে তারা পোড়ালোনা। গ্রামবাসী একটা মাচা বানালো.....তার উপরে আমাদের দুজনকে বেঁধে রাখলো..মাচার নিচে তিনটা বিশাল বিশাল নেকড়ে ছুটোছুটি করছে.....পিঠে পিঠ ঠেকিয়ে দুজন পড়ে রইলাম। আমিবারবার এলিয়েপড়ছিলাম... .ডেভিড হঠাৎ ফিসফিসিয়ে আমাকে বললো....কালকেই সব শেষ হয়ে যাবে। আমি বললাম...."আইডাকোথায়?" ডেভিড কিছুক্ষন চুপ থেকে বললো..."সে মিলিয়ে গেছে...তার অনন্য ক্ষমতা দিয়ে সে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছে যখনসে জানতে পেরেছে গ্রামবাসী তার খোঁজ পেয়ে গেছে।"
 
"সে কোথায় মিলিয়ে গেছে?"
 
"তোমার মাঝে"
 
আমার হঠাৎ মনে পড়লো আইডার হাতে হাত রাখার পর সবকিছু ওলটপালট হয়ে গিয়েছিলো। আমি দম নিয়ে বললাম..."আইডা আমার মাঝে। কিন্তু আমি টের পাচ্ছিনা কেন?"
 
"জানের বদলা জান।"
 
"মানে?"
 
"আইডা তখনই ক্ষমতা দেখাতে পারবে যদি তার নামে কাউকে বলি দেওয়া হয়।"
 
"মানে?"
 
"তুমি কি ক্ষুধা অনুভব করছ?"
 
আমি অবাক হয়ে আবিষ্কার করলামআমার শরীরে ব্যথা কিন্তু কোনক্ষুধা নেই। ডেভিড হেসে বললো....."এটাই আইডার অস্তিত্বের প্রমান। আমি আইডার জন্য আমার জীবন উৎসর্গকরব। তুমি শুধু আমার মৃত্যুরপর রক্তটুকু পান করবে তাহলেইআইডা ক্ষমতা ফিরে পাবে।"
 
"আমি কিছু বুঝতে পারছিনা। আমার কি হবে?"
 
"তুমিতো তুমিই থাকবে। আইডাকেতুমি ধারন করবে।"
 
এরপর লোকটা দম নেয়ার জন্য থামল।
 
রাহাতের শিড়দাঁড়া বেয়ে বারবার যেন শীতল কিছু বয়ে যাচ্ছে।
 
¤¤ চলবে ¤¤