Sunday, June 10, 2012

লাশ [Small Tale Ghost - 2 ]




এই ঘটনাটি ঘটেছিল আমার মামার সাথে।

প্রায় 4/5 বছর আগের কথা। আমার বয়স তখন 22/23 এরকম হবে। আমার মামা ঢাকায় থেকে লেখাপড়া করতো। আমার মামারদের বাড়ি ছিল রাজবাড়ি জেলায়। একবার আমার মামা ঈদের ছুটিতে গ্রামে আসতেছে। ওই গ্রামের যাওয়ার দুটি রাস্তা ছিল। একটি রাস্তা দিয়ে গেলে দ্রুত যাওয়া যায় কিন্তু একটি সমস্যা ছিল ওই রাস্তা পাশে কবরস্থান ছিল এবং ওখানে নাকি অনেক ভয় ছিল তাইওই রাস্তা দিয়ে রাতে কেউ বাড়ি ফিরতো না আর অন্য রাস্তা দিয়ে গেলে কনো সমস্যা হত না। আমার মামা বাজার পর্যন্ত আসে এবং রিস্কা ওয়ালা বলে আর যাবে না অনেক রাত হয়েছে তাই। 



আমার তখন কি আর করবে রিক্সাথেকে নামে এবং দেখে বাজারে দুই একটা দোকান খোলা আছে কিন্তু কনো ভ্যান বা রিক্সানেই। তখন আমার মামা কিছু করার নেই দেখে হাটা শুরু করে। একসময় ওই দুটো রাস্তারসামনে যেয়ে থেমে ভাবে যে কোন রাস্তা দিয়ে যাবে। তখন আমার মামা মনে করে কবরস্থানএর রাস্তা দিয়েই যাই। তারপরআমার মামা ওই কবরস্থান এর রাস্তা দিয়ে যাচ্ছে। তখন আমার মামার মনে পরে যায় যে রাতে কেউ এই রাস্তা দিয়ে যায় না এবং এই রাস্তা দিয়ে গেলে নাকি সমস্যা হয়। এই ভেবে আমার মামা থেমে যায়। তারপর আমার মামা ভাবে ওই রাস্তা দিয়ে গেলে অনেক সময় লাগে এবং অনেক দেরি হয়ে যাবে বাড়ী পৌছাতে। এই ভেবেআমার মামা কবরস্থান এর রাস্তা দিয়ে হাটা শুরু করে।এমন সময় দেখে আমার মামার গ্রামের বন্ধু জামাল সে পেছন থেকে ডাকতেছে তখন আমারপেছনে তাকায় এবং দেখে সত্যিজামাল আসতেছে। তখন জামাল কাছে আসার পরে জামাল কে বলেতুই এত রাতে কোথায় গিয়েছিলি? তখন জামাল বললো তোকে আনতে বাজারে। তখন মামাবলে কোথায় তোকে তো বাজারে দেখলাম না। তখন জামাল বলে আমি একটু ওই দিকে গিয়েছিলাম। তখন আমার মামা বলে কোন দিকে? জামাল বলে ওইদিকে কিন্তু কোন দিক না দেখিয়ে। তখন আমার মামা এটারতেমন গুরুত্য না দিয়ে জামালএর সাথে হাটা শুরু করে। তারপর যখন কবরস্থান এর পাশেআসলো তখন দেখা গেলো জামাল নেই জামাল উধাও। আমার মামা এদিকে ওদিকে তাকিয়ে কোথাও জামাল কে খুজে পেল না। তখন আমার মামা একা একা হাটতে লাগলো একটু একটু ভয় নিয়ে বুকে। এমন সময় আমার মামা অনূভব করলো তার শরির এর ভিতর দিয়ে কে যেন বেরিয়ে গেলো। এরকম অনূভব করার পরে আমার মামা আরো ভয় পেয়ে যায়।এবং কিছু করার নেই ভেবে জোরে জোরে হাটতে শুরু করে। কিছুক্ষন পরে আমার মামার একদিকে চোখ পরে যায় এবং দেখে একটি মেয়ে কবরস্থান এরকবর থেকে লাশ উঠিয়ে সেই পচালাশ নখ দিয়ে ছিরে ছিরে কাচ্ছে এবং আমার মামা কে ডাকতেছে আর খিল খিল করে হাসতেছে। এটা দেখা মাত্র আমার মামা ভয় পেয়ে যায় এবং আমার মামার শরির ঠান্ডা হয়েযায় । তখন কিছু না দেখার ভান করে দৌর শুরু করে দেয়। একসময় আমার মামাদের বাড়ীতে এসে চিত্‍কার দিয়ে হাপাতে শুরু করে আমার মামা।তখন আমার নানা নানী এবং বড়মামা ঘর থেকে বেড়িয়ে আসে এবং বলে কি হয়েছে তখন আমার মামা সব ঘটনা খুলে বলে। তখনআমার নানা নানী নিষেধ করে যে যত রাত ই হোক না কেনো আর যেন ওই রাস্তা দিয়ে না আসা হয়। এরপরে আমার মামার আর কনো সমস্যা হয় নাই এবং আর কনোদিন ওই রাস্তা দিয়ে আসেনি।
100% সত্য গল্প আমি ঠিকমত লিখতে পারিনি তাই। কেমন লাগলো তা like & কমেন্ট করে জানান।